https://www.somagom.com/wp-content/uploads/2019/10/redmi-airdots-price.jpg

Redmi AirDots : প্রিয় পাঠক, দুনিয়া চলছে ওয়্যারলেস টেকনোলজির পিছনে। ইতিমধ্যে আমরা অনেক ওয়্যারলেস ডিভাইস দেখতে পেয়েছি। সাম্প্রতিক এর সাথে যুক্ত হয়েছে এয়ারডটস। প্রথম দিকে অ্যাপেল বাজারে নিয়ে এসেছিল এই প্রযুক্তিটি আর এর পর পরই শুরু হয়ে যায় চাইনিজ কোম্পানি গুলোর ছুটাছুটি। তারাও লেগে পরে অ্যান্ড্রোয়েড এর জন্য এমন একটি ডিভাইস নিয়ে আসতে এবং শেষ পর্যন্ত  নিয়েও আসে।

আর এই কাজে বেশ সফলতা লাভ করে শাওমি এবং তারা তাদের প্রোডাক্টটি ব্রান্ডিং করার জন্য নাম দেয় এয়ারডট। বর্তমানে বাজারে কয়েক শত ব্রান্ডের এয়ারডট পাওয়া যাচ্ছে। তব এদের মধ্যে দৌড়ে এগিয়ে আছে শাওমি এয়ারডট।

হ্যাঁ বুজতেই পারছেন আজকের লেখা জুড়ে কথা হবে শাওমির Redmi Airdots নিয়ে। কথা না বাড়িয়ে চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক Xiaomi Redmi Airdots TWS সম্পর্কে।

এরায়ডটস এর ডিজাইন নিয়ে তেমন কিছু বলার থাকে না। এগুলো সবগুলো দেখতে প্রায় একই রকম হয়ে থাকে। তবে একদম বলা যে যায় না তাও না। সবাই বলে আমিও একটু দেখি পারি কিনা।

প্যাকেটে যা যা থাকছে

প্যাকেট খুললে দেখা মিলবে একটি কেইস যেখানে লুকায়িত আছে আপনার পছন্দের ডিভাইস খানা। থাকছে ইউজার ম্যানুয়াল। আরও থাকছে দুই জোড়া এয়ার টিপস এবং চারজিং ক্যাবল। সাথে চারজিং এডাপটার।

Redmi Airdots বিল্ড কোয়ালিটি

 

https://www.somagom.com/wp-content/uploads/2019/10/airdots.png

বাজেট এয়ারফোন আকারে বেশ ছোট ওজনেও বেশ হালকা; যদিও প্লাস্টিকের ফ্রেমে আবদ্ধ তবে হাতে নিলে বাজে ফিল হবে না। মোটামুটি একটা প্রিমিয়াম ফিল পাওয়া যায়।

কেইসটি আকারে ছোট হওয়ায় পকেটে বা হাতে বহনে অস্বস্তি লাগবে না; আমার কাছে লাগে নি আপনার কাছে কেমন লাগে তা নির্ভর করবে আপনার উপর।

বক্সটি খোলার সময় অবশ্যই সাবধানে খুলবেন না হয় পিছনের লকটি ভেঙ্গে যেতে পারে; খুলতে বন্ধ করতে তেমন গিলটি পোহাতে হয় না। তবে ধীরে ধীরে লুজ হয়ে যেতে পারে।

এয়ারডটস এর সাথে ক্রেডলের ম্যাগেনেটিক কানেকশন থাকায় এটি বক্স থেকে পড়ে যাওয়ার চান্স নাই

আকারে ছোট হওয়ায় কানের সাথে ভালো ভাবেই এঁটে যাবে; প্রথম প্রথম একটু অসস্তি লাগতে পারে। আলাদা সাইজের এয়ার টিপস থাকায় আপনার কানের সাইজের সাথে মিলিয়ে পড়ে নিতে পারবেন।

কিভাবে সেট-আপ  করতে হয়

এয়ারডট সেটআপ নিয়ে তেমন ঝামেলা নেই। খুবই সিম্পল ও সহজ। কেইসটি ওপেন করুন আপনার মোবাইলের ব্লুটুথ চালু করুন; ডানদিকের এয়ারডটটি খুলে নিলে রেডমি এয়ারডটস আর শো করবে এবার কানেক্ট এ ক্লিক করলেই কানেক্ট হয়ে যাবে।

Redmi Airdots টি একবার কানেক্ট করে নিলেই কাজ শেষ; এর পর যত বার আপনার রাইট বা বাম এয়ারডটসটি বক্স থেকে খুলে নিবেন তখনই কানেক্ট হয়ে যাবে; আর বক্সে রেখে দিলেই ডিসকানেক্ট হয়ে যাবে। কানেক্ট বা ডিসকানেক্ট হতে খুবই কম সময় নেয়।

কন্ট্রোল

যেহেতু বাজেট প্রোডাক্ট তাই থাকছে না প্রিমিয়াম ফিচার। অর্থাৎ টাচ কিংবা অন্যান্য ফিচার। তবে টাচ ফিচার থাকলে আর বাজেট এর মধ্যে থাকতো না; এয়ারডটসটি কানেক্ট করার সময় একটা শব্দ হয় যা আমার কাছে বেশ বাজে লেগেছে।

কন্ট্রোল করার জন্য বাড়তি কোন ফিচার থাকছে না। হেডফোনের একটি বেসিক ফিচার হচ্ছে ডাবল ক্লিক করে নেক্সট গানে যাওয়া কিংবা আগে গানে যাওয়া।

কিন্তু রেডমি র এই এয়ারডটসে শুধু সিঙ্গেল প্রেসে প্লে ও সিঙ্গেল প্রেসে পস অপশন রয়েছে এতে; ডাবল ক্লিকে নেক্সট ট্রাকে না গিয়ে গুগল ভয়েস এসিস্টেন্ট চালু হয়ে যায়। কিন্তু এই ফিচার গুলো একান্ত আবশ্যক।

Redmi Airdots সাউন্ড কোয়ালিটি

https://www.somagom.com/wp-content/uploads/2019/10/airdot-s-price.jpg

এতো অভিযোগ থাকলেও এর সাউন্ড কোয়ালিটি শুনে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন; দুই ইউনিটই বেশ ব্যালেন্সড অর্থাৎ একটার সাথে অন্য কানের সাউন্ডে কোন ব্যবধান নেই। পাশাপাশি যথেষ্ট লাউড।

আপনি যদি বেস পছন্দ করে তাহলে স্মার্টফোনের সেটিং থেকে বেস বাড়িয়ে নিতে হবে নরমাল সেটিং এ ক্লাসিক মোডে থাকে। আমার কাছে এটাই পারফেক্ট লাগে।  তবে সবার পছন্দ একই না।

অনেক হেডফোনে কর্কশ সাউন্ড থাকে পাশাপাশি সবগুলো ফ্রিকুয়েন্সি একই কাজ করে না; কিন্তু Redmi Airdots এ এমনটা নেই। সাউন্ড কয়ালিটি নিয়ে আমি যথেষ্ট খুশি।

এর টোনটা বেশ অসাধারন লেগেছে আমার কাছে।আপনাদের কাছেও ভালো লাগবে নিশ্চই।

কল সাউন্ড কয়ালিটি

এই এয়ারডটস এর দুই ইউনিটেই মাইক্রোফোন থাকছে। তবে কথা হচ্ছে ইন কল সাঊন্দ কোয়ালিটি আমার কাছে বেশি ভালো আবার বেশি খারাপও লাগে নি। অর্থাৎ এভারেজ বলা চলে; বেশি নয়েজি স্থানে আপনার কথা শোনায় সমস্যা হতে পারে।

আরেকটি কথা লংটাইম কানে রাখলে আপনার কাছে বিরিক্ত অনুভব হতে পারে। যা বেশিরভাগ হেডফোনের ক্ষেত্রেই হয়।

চার্জ

কেইসটি এয়ারডটস এর চারজিং ক্যাবল হিসেবে কাজ করে। যখন আপনার Redmi Airdots টি কেসের মধ্যে রাখবেন এটি চারজিং মুডে থাকবে; আর চার্জ হতে সময় নেয় প্রায় দুই ঘণ্টা। একবার চার্জ দিলে আপনি টানা আড়াই ঘণ্টা ব্যাকাপ পাবেন।

চারজিং নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করার দরকার আছে বলে আমি মনে করি না; চারজিং কেইসটি এয়ারডটস গুলোকে দুই বারের বেশি চার্জ দিতে পারার ক্ষমতা রাখে। তবে এজন্য আপনাকে এই কেইসটিকে চার্জ দিতে হবে।

অন্যান্য

শাওমি Redmi Airdots এ থাকছে ব্লুটুথ ৫। তবে বাজেট ফ্রেন্ডলি ডিভাইস বলে কথা অনেক ফিচার থাকবে না এটাই স্বাভাবিক।

AirDots বাজার মুল্য

পথম দিকে এর দাম ছিল ২০০০ টাকা ।  তবে বর্তমানে এটি মাত্র ১৫০০/১৪০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। দাম আরও কমার সম্ভাবনা আছে। Redmi Airdots Price in Bangladesh: 1400 Tk Only 

প্রিয় পাঠক, রাস্তা পাড়াপাড়ের সময় কানে হেডফোন পড়া ও ফোনে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। আর উচ্চ শব্দে হেডফোনে গান শুনে নিজের কানের ক্ষতি করবেন না।

জাবরা এলিট ২৫ই হেডফোন রিভিউ পড়ুন এখানে

বাংলা ভাষায় প্রোডাক্ট রিভিউ , টেক আপডেট ও টেক টিপস পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন সমাগম ডট কম। — ভালোবাসা অবিরাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *